Treasures of Innocence » January 25, 2019

Daily Archives: January 25, 2019

আমার চোখে Treasures of Innocence

 

বিবেকানন্দ বলেছিলেন যে, “গীতা পাঠের থেকে মাঠে গিয়ে ফুটবল খেলা অনেক ভাল”…

তাই পুঁথিগত শিক্ষার সহিত খেলাধুলা, শরীরচর্চাতেও মনোযোগী হওয়া উচিত। একটি শিশু যখন জন্মগ্রহণ করে তখন সে সামান্য মানুষ রূপেই জন্মগ্রহণ করে, কিন্তু সেই শিশুটিই পারে একদিন সামান্য থেকে অসামান্য হয়ে উঠতে। Treasure of Innocence সেই সমস্ত শিশুদের অসামান্য হয়ে উঠতে সাহায্য করছে,তাদের মনোবল বাড়াতে সাহায্য করছে, যারা সমাজ থেকে বিচ্ছিন্ন, যারা বঞ্চিত, আপনাদের কথায় ‘গরিব’। প্রদীপের আলোতে চারদিক আলোকিত হলেও আমরা জানি প্রদীপের তলাতেই থাকে অন্ধকার। তাই, Treasures of Innocence জোনাকি হয়ে তার ক্ষুদ্র প্রয়াস নিয়ে মহৎ উদ্দেশ্য সাধনের জন্য সেই প্রদীপের নিচের অন্ধকার মোচনে সদা সচেষ্ট।

 

 

বিগত কয়েক বছর ধরে তারা তাদের বার্ষিক অনুষ্ঠান “Catch Them Young Inter-School Meet” এর আয়োজন করে আসছেন। কোলকাতা ও তার আশেপাশের ১০ টি বিদ্যালয় এই অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন। বছরের মাঝামাঝি পঞ্চম থেকে অষ্টম শ্রেণীর ছাত্র ছাত্রীদের মধ্যে থেকে পড়াশুনা ও অঙ্কনের প্রতিযোগিতার উপর নির্ভর করে বেছে নেওয়া হয় ইন্টারস্কুল টপারদের, তারাও পুরস্কৃত হয় এই মঞ্চে।

 

এই বছরের অনুষ্ঠানের মূল ভাবনা ছিল “শিশুর অধিকার”। এই ভাবনা কে মাথায় রেখে সমাজের চলমান সমস্যার উপর ভিত্তি করে আয়োজন করা হয়েছিল নাট্য প্রতিযোগিতা, যা একাধারে ছাত্রছাত্রী ও দর্শকদের সচেতন হতে সাহায্য করে। এই বিদ্যালয়গুলি থেকে শিশুরা আবার Quiz Competition আর Talent Hunt এ অংশগ্রহণ করে তাদের অসাধারণ প্রতিভার পরিচয় দেন।

 

 

Treasure of Innocence এখানে কান্ডারীর ভূমিকায় অবতীর্ণ। নৌকার পাল তুলে ছেড়ে দিলে সেই নৌকা হাওয়ার বেগে চলবে ঠিকই কিন্তু তার দিকভ্রষ্ট হয়ে যাবে । Treasure of Innocence এখানে নিজে হাল ধরে নৌকার শিশুদের তাদের গন্তব্যের দিকে, তাঁদের উজ্জ্বল ভবিষ্যতের দিকে এগিয়ে যেতে সাহায্য করে চলেছে প্রতিনিয়ত।

 

 

কে বলতে পারে যে এই সমস্ত শিশুরাই ভবিষ্যতে ডাক্তার, শিক্ষক, নৃত্য শিল্পী কিংবা গায়ক হবে না। এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সমাজের বিভিন্ন শ্রেনীর সনামধন্য মানুষজন, তাদের উজ্জ্বল উপস্থিতি অনুষ্ঠানটিকে আরও প্রাণবন্ত করে তুলেছিল। আমার দৃঢ় বিশ্বাস যে, এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত প্রত্যেকটি মানুষের অন্তরের মনিকোঠা স্পর্শ করে গেছে ছোটো ছোটো ভাইবোনদের সুপ্ত প্রতিভা।

 

যতই দামী সোনার খাঁচায় আটকে পাখি পোষা হোকনা কেন ,পাখি যদি ডানা মেলে উড়তে না পারে তাহলে সেই পাখি তার জীবনের সারমর্ম অনুভব করতেই পারে না। Treasure of Innocence শৈশবের সেই পাখিদের আকাশে ডানা মেলে ওড়ার জন্য মঞ্চ গড়ে দিতে সদা উদগ্রীব। তাদের মূল মন্ত্র: আগে ভালো মানুষ হও কারণ,  আজকের শিশুরাই ভবিষ্যতে সমাজের চালিকা শক্তি হবে।

 

আর তাদের সাথে পথ চলতে পেরে আমিও গর্বিত। আমি Treasure of Innocence এর সাথে যুক্ত সমস্ত মানুষকে ধন্যবাদ জানানোর সাথে সাথে সমাজের বাকি সকল সুভবুদ্ধি সম্পন্ন মানুষদের অনুরোধ করব, আপনারাও এদের পাশে এসে দাঁড়ান কারণ, বিন্দু বিন্দু জলকনা ই একদিন সিন্ধুর আকার নেবে যা সমাজের সেই সমস্ত মানুষের কাজে লাগবে যাদের সত্যিই আপনাদের সাহায্যের দরকার।

এখানে আরও একটি জিনিস চাক্ষুস করলাম যে  কি ভাবে নারীশক্তির অদম্য ইচ্ছা একটি বার্ষিক অনুষ্ঠান সহ সারা বছরের শিক্ষা ও সেবামূলক কাজকর্মকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে আলোর দিকে।

আমি Treasure of Innocence এর সমস্ত মানুষকে জানাই আমার অন্তরের মনিকোঠা থেকে সেলাম ও প্রনাম।

 

–গোলক দেবনাথ (ভলান্টিয়ার)

Published by:
Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com
Treasures of Innocence